1. bkhabor24@gmail.com : Md Abu Naim : Md Abu Naim
  2. jmitsolution24@gmail.com : support :
বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ০৬:০০ পূর্বাহ্ন

নির্বাচন উৎসবমুখর ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে

  • Update Time : রবিবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৪৬ জন পঠিত

বাংলাদেশ খবর ডেস্ক,

ভোটারদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে দ্বিতীয় ধাপে পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, এ দেশে নির্বাচন মানেই উৎসবের আমেজ। এই পৌরসভা নির্বাচনেও মানুষ উৎসবমুখর ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছে। জনগণ এর মাধ্যমে নির্বাচন নিয়ে যারা মিথ্যাচার করে, তাদের জবাব দিয়েছেন। স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দেওয়ায় আমি ভোটারদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি।দ্বিতীয় ধাপের পৌরসভা নির্বাচন শেষে শনিবার বিকালে রাজধানীর সরকারি বাসভবনে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কাথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকার নির্বাচন কমিশনের চাহিদা অনুযায়ী নির্বাচনে সব ধরনের সহযোগিতা করেছে। নিজস্ব পরিকল্পনা ও আইনগত ক্ষমতা প্রয়োগের মাধ্যমে দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচন অত্যন্ত সফলভাবে আয়োজন করায় আমরা নির্বাচন কমিশনকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এছাড়া নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সব কর্মকর্তা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সবাইকে ধন্যবাদ জানান সেতুমন্ত্রী।

নির্বাচনে জয়-পরাজয় থাকবে, তবুও স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোকে শক্তিশালী করার মাধ্যমে গণতন্ত্রকে এগিয়ে নিতে এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য সব প্রার্থীকে ধন্যবাদ জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বেশকিছু পৌরসভায় ইভিএম প্রদ্ধতিতে ভোট হয়েছে। ভোটারদের ব্যাপক অংশগ্রহণ ও ভোটাধিকার প্রয়োগ ইভিএম-এর ক্রমবর্ধমান জনপ্রিয়তাই প্রমাণ করে। এছাড়া দ্বিতীয় ধাপের এই নির্বাচনে ভোটার টার্নআউটও প্রশংসনীয়। বিএনপি উদ্দেশ্যমূলকভাবে বিরোধিতা করলেও দেশের জনগণ অত্যন্ত স্বাবলম্বীভাবে ও সাচ্ছন্দ্যে ইভিএম-এ ভোট দিয়েছেন। পৌরসভার এই নির্বাচনে ইভিএম প্রদ্ধতিতে যেসব পৌরসভায় ভোট হয়েছে, সেখানেও জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতি ছিল লক্ষণীয়।

সেতুমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারে দেশের জনগণ অভ্যস্ত হয়ে উঠলেও বিএনপির মানসিকতা এখনো এনালগে রয়ে গেছে। তাই তারা এ পদ্ধতির বিরোধিতা করে। স্বচ্ছতার কথা মুখে বললেও প্রকৃতপক্ষে বিএনপি প্রযুক্তিবিমুখ পিছিয়ে পড়া ধ্যানধারণা আঁকড়ে ধরে বসে থাকতে চায়। তাই তারা জনগণের প্রত্যাশা থেকে পিছিয়ে পড়েছে। নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে গণমাধ্যম এবং রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক আগ্রহ ছিল উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, সেখানেও অবাধ, শান্তিপূর্ণ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিএনপির প্রার্থীরা ভোটের পরিবেশ ও ভোটাধিকার প্রয়োগ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করলেও তাদের কেন্দ্রীয় নেতারা শুধু সমালোচনার জন্য সমালোচনা করছে, যা অত্যন্ত দুঃখজনক।

তিনি বলেন, বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে ইভিএম-এ ভোট হয়েছে এবং ৬০ ভাগেরও বেশি ভোটার উপস্থিত ছিলেন। অথচ মির্জা ফখরুল সাহেব আমাকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করে যেসব কথা বলেছেন, তার জবাব আমি না দিলেও বসুরহাট পৌরসভার ভোটাররা শান্তিপূর্ণ ও স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের মাধ্যমে জবাব দিয়েছেন। দেশের নির্বাচনব্যবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করার যে অপপ্রয়াস অবিরাম চালিয়ে যাচ্ছে বিএনপি, তা আর হালে পানি পাচ্ছে না মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশের জনগণ এখন আর বিএনপি নেতাদের মিথ্যাচারে বিশ্বাস করে না। বসুরহাটে যে নির্বাচন হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমন নির্বাচন চান-উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ নির্বাচনকে অনেকেই স্বচ্ছতার জন্য ‘বসুরহাট মডেল’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, বিএনপি ভোটে হারার আগেই হেরে বসে থাকে, তারা রাজপথ ভয় পায়, আন্দোলনেও ভয় পায়। বিএনপি ভোটের মাঠে শেষ পর্যন্ত টিকে থাকার আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলে মাঝেমধ্যে, তারা কল্পিত অভিযোগ এনে ভোটের মাঠ ত্যাগ করে তাদের চর্চিত নেতিবাচক রাজনীতির ঐতিহ্য ধরে রাখার অপচেষ্টা করে। মির্জা ফখরুলকে উদ্দেশ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, কোথায় কে কী বলল, সেটা বিষয় নয়, আওয়ামী লীগ একটি সুসংগঠিত রাজনৈতিক দল। আমরা আদর্শের রাজনীতি করি। তিনি বলেন, জনগণের চোখের ভাষা, মনের ভাষা বুঝে রাজনীতি করে আওয়ামী লীগ। তাই পরিবারের কে কোথায় কী বলল, সেটা বিষয় নয়। প্রত্যেকের ব্যক্তিগত মত থাকতে পারে। অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্র চর্চার সুযোগ রয়েছে আওয়ামী পরিবারে, আবার গঠনতন্ত্রবিরোধী কার্যকলাপের জন্য শাস্তির বিধানও যথাযথভাবে কার্যকর করা হয়, যা বিএনপির রাজনৈতিক চর্চায় নেই।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020
Design & Develpment by : JM IT SOLUTION