1. bkhabor24@gmail.com : Molla Mohiuddin : Molla Mohiuddin
  2. jmitsolution24@gmail.com : support :
বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ০৮:০৩ অপরাহ্ন

আ.লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম ফের সীমিত

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৬৩ জন পঠিত

বাংলাদেশ খবর ডেস্ক,

ফের সীমিত হচ্ছে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম। মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে জেলা-উপজেলা, ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পর্যায়ের সম্মেলনগুলো। আওয়ামী লীগের বিভাগীয় সাংগঠনিক টিমগুলোরও আপাতত আর তৃণমূল সফরে নামা হচ্ছে না। তবে তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে দল গোছানোর কাজ চালাবেন। চলবে সম্মেলন হওয়া জেলা-উপজেলার কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার কাজও। পাশাপাশি স্থানীয় সরকার নির্বাচনেও অংশগ্রহণ থাকবে আগের মতোই। বড় জনসমাবেশ না করে দিবসভিত্তিক কর্মসূচিগুলো সীমিত পরিসরেই চলবে। তবে সব ক্ষেত্রেই স্বাস্থ্যবিধি মানতে কেন্দ্র থেকে আরও কঠোর নির্দেশনা দেয়া হতে পারে। জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান মঙ্গলবার বিকালে যুগান্তরকে বলেন, এখন তো শীতকাল চলছে, তাই আমরা একটু ধীরগতিতে এগোচ্ছি। তাছাড়া যখন সাংগঠনিক টিম করে দেয়া হয়, তখনই আমাদের বলা হয়েছিল- স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে। আমরা সেই নির্দেশনা মেনেই কার্যক্রম চালানোর চেষ্টা করেছি। কিন্তু সম্মেলন হলে অনেক মানুষের উপস্থিতি থাকে। ফলে স্বাস্থ্যবিধি মানা কঠিন হয়ে পড়ে।

একই বিষয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম যুগান্তরকে বলেন, আমরা এমন কর্মসূচি করতে চাচ্ছি না, যার মধ্য দিয়ে মানুষের ক্ষতি হয় বা মানুষের মাঝে ভুল বার্তা যায়। তাই করোনার কারণে জেলা-উপজেলা পর্যায়ে আওয়ামী লীগের সম্মেলনগুলো স্থগিত করা হয়েছে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অন্য কার্যক্রমগুলো চলবে। শীতকাল কেটে গেলে এগুলো আবার শুরু হবে। তিনি আরও বলেন, নির্বাচন তো সাংবিধানিক প্রক্রিয়া। আওয়ামী লীগ সব সময় নির্বাচনমুখী দল। দলীয় সূত্র জানায়, অনেক দেশেই করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আগের তুলনায় ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। বাংলাদেশে পরিস্থিতি কেমন হয় সেটা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। ফলে আওয়ামী লীগ আরও কিছু দিন বড় ধরনের জনসমাবেশ এড়িয়ে চলতে চাইছে। আবার তৃণমূল পর্যন্ত দলকে ঢেলে সাজানোর কাজও একেবারে বন্ধ রাখতে চায় না। তাই সীমিত পরিসরে জনসমাবেশ এড়িয়ে করা যায়- এমন কাজগুলোই শুধু চালিয়ে যেতে চায় তারা।

করোনার কারণে গত বছর দীর্ঘ সময় দল গোছানোর কাজ স্থগিত রাখতে হয়েছিল আওয়ামী লীগকে। প্রায় ৭ মাস পর সেপ্টেম্বরে আবার এ কাজ শুরু করেছিল দলটি। এর মধ্যে ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ আওয়ামী লীগসহ গত বছরের শেষের দিকে সম্মেলন হওয়া সহযোগী সংগঠনগুলোর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। উপ-কমিটিগুলো পূর্ণাঙ্গ করার কাজও প্রায় শেষের দিকে। এ সময়ে ওয়ার্ড ইউনিয়ন থেকে শুরু করে মেয়াদোত্তীর্ণ জেলা সম্মেলনের কাজও শুরু করেছিল আওয়ামী লীগ। দ্বিতীয় দফায় কাজ শুরু হওয়ার পরে সারা দেশের বিভিন্ন স্থানে ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আওয়ামী লীগের বিভাগীয় সাংগঠনিক টিমের এক সদস্য যুগান্তরকে বলেন, সাংগঠনিক কাজ শুরু হওয়ার পরে আমি বেশ কয়েকটি স্থানে (উপজেলায়) সম্মেলনে গিয়েছি। সেখানে অনেক মানুষ হয়। আওয়ামী লীগের সম্মেলনে মানুষ হবে এটা স্বাভাবিক। কিন্তু করোনার শঙ্কা তো এখনও কাটেনি। ফলে এগুলো মানুষের মধ্যে ভিন্ন বার্তা দিতে পারে। তাই নেত্রী (আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) লোক সমাগম বেশি হয় এমন সভা-সমাবেশ ও সম্মেলন আপাতত বন্ধ রাখার নির্দেশনা দিয়েছেন।

প্রাথমিকভাবে এটা মার্চ পর্যন্ত থাকছে। তবে সবকিছু নির্ভর করবে করোনার ওপর। জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন বলেন, করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কা বিবেচনায় নিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সম্মেলন কিছু দিনের জন্য স্থগিত রাখা হয়েছে। পরিস্থিতি ভালো হলে আবার আমরা সম্মেলনসহ লোক সমাগম হয় এমন কার্যক্রম শুরু করব। এদিকে করোনার মধ্যেও স্থানীয় সরকার নির্বাচনের কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হচ্ছে আওয়ামী লীগকে। ডিসেম্বরে শুরু হয়েছে পৌরসভা নির্বাচন। ইতোমধ্যে ২৮ ডিসেম্বর প্রথম ধাপের ২৪টি পৌরসভার ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে বেশিরভাগ জায়গায় আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। ১৬ জানুয়ারি দ্বিতীয় এবং ৩০ জানুয়ারি তৃতীয় ধাপের ৬১ ও ৬৪ পৌরসভায় ভোট অনুষ্ঠিত হবে। আওয়ামী লীগ ইতোমধ্যে এ দুই ধাপেও দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে। চতুর্থ ধাপের দলীয় প্রার্থীও বাছাই হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020
Design & Develpment by : JM IT SOLUTION