1. bkhabor24@gmail.com : Molla Mohiuddin : Molla Mohiuddin
  2. jmitsolution24@gmail.com : support :
শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ০২:১৬ পূর্বাহ্ন

কুয়াকাটা তরুন ক্লাবে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত মানসিক স্বাস্থ্যসুরক্ষা বিষয়ক সেমিনার

  • Update Time : সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১২১ জন পঠিত

কুয়াকটা পটুয়াখালী থেকে মোঃ জাহিদ,

অসুখ শুধু শরীরেই হয়না; মনের অসুখও অনেক বড় অসুখ, যা আমাদের মতো দেশে খুব গুরুত্বপূর্ণভাবে নেয়া হয়না বলেই পিছিয়ে পড়ছি আমরা। আর করোনাকালীন এই সময়ে গৃহবদ্ধ অবস্থায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে আমাদের কিশোর-কিশোরী ও তরুণ সমাজ।

“আত্মহত্যা প্রতিরোধে সমন্বিত উদ্যোগ” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে গত ১০ই সেপ্টেম্বরে বিশ্ব আত্মহত্যা দিবসকে কেন্দ্র করে সাগরকণ্যা পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় স্থানীয় যুব স্বেচ্ছাসেবকদের নিয়ে “এলায়েন্স ফর ইয়ুথ এন্ড ডেভলপমেন্ট” (এওয়াইডি) এর মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক উদ্যোগ “স্বস্তিকথন” এর আয়োজনে মানসিক স্বাস্থ্য পরামর্শ বিষয়ক সংগঠন “বিডিলিসেনার্স” এর সহযোগিতায় এবং কুয়াকাটা তরুণ ক্লাবের বাস্তবায়নে মানসিক স্বাস্থ্যসুরক্ষা বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১৩সেপ্টেম্বর  রোজ রবিবার বিকেল ০৩:০০ ঘটিকায় কুয়াকাটা তরুণ ক্লাব কার্যালয়ে,  ইব্রাহিম ওয়াহিদ’র সভাপতিত্বে মহিপুর থানার বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের যুবনেতাদের জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি হ্রাস, যুবসমাজের করনীয় এবং সামাজিক প্ররোচনায় আত্মহত্যা ঘটার কারণ, প্রতিকার ও সামাজিক সচেতনতা ও মানসিক সুস্থতা অর্জনের নানান কৌশল নিয়ে ধারনা প্রদান করা হয়। সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন, সাইকলজিস্ট ও বিডিলিসেনার্স এর সিইও জনাব ফয়সাল আহমেদ রাফি। তিনি বলেন, আত্মহত্যা দিবসের প্রতিপাদ্য ‘আত্মহত্যা প্রতিরোধে সমন্বিত উদ্যোগে যুবদের ভুমিকা নিয়ে। তিনি জানান আত্মহত্যা ঠেকাতে সচেতনতার বিকল্প নেই। সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে, জাগ্রত করতে হবে সুস্থ মানবিক মূল্যবোধ। হতাশাগ্রস্ত মানুষকে তাদের জীবনের প্রতি ভালোবাসায় উদ্বদ্ধ করতে হবে।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ,স্বস্তিকথন এর আহ্বায়ক জনাব আসিফ মইনুর চৌধুরী। তিনি বলেন ,জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত বা দুর্যোগপ্রবণ উপকুলীয় এলাকায় আত্মহত্যার জন্য সবচেয়ে বেশি দায়ী যে মানসিক রোগ, তার নাম ‘ডিপ্রেশন’। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে অনেকে ব্যক্তিগত, পারিবারিক ও সামাজিক জীবনে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা, অপ্রাপ্তি, অসহ্য মানসিক চাপ, মানসিক ও যৌন হয়রানি, সহিংসতা, যৌতুকের চাপ, পরকীয়া, প্রেম, দাম্পত্যকলহ প্রভৃতি থেকে সাময়িক নিষ্কৃতি পাওয়ার জন্য আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়।

প্রসঙ্গত, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২০১৪ সালে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রতি বছর বিশ্বে আট লাখেরও বেশি মানুষ আত্মহত্যা করে। সংস্থাটির মতে, প্রতি ৪০ সেকেন্ডে একজন মানুষ আত্মহত্যা করে। প্রায় ১৫ থেকে ২০ গুণ মানুষ আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020
Design & Develpment by : JM IT SOLUTION